অসহায়দের রান্না করা খাবার দিচ্ছে গিয়াস উদ্দিন

প্রকাশিত : ৯ মে, ২০২০

সারা দেশের মত টাঙ্গাইলেও করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ছিন্নমূল, অসহায়, দরিদ্র, খেটে খাওয়া মানুষের আয় রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। এমন মানুষের ঘরে নেই খাবার। এসব মানুষের জন্য রান্না করা খাবারের প্যাকেট নিয়ে পৌর এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে গিয়াসউদ্দিন। তাঁদের মাঝে একবেলা খাবার তুলে দিচ্ছেন তিনি।

গিয়াস উদ্দিনের বাড়ি বরিশাল জেলায়। তিনি ব্রিটিশ অ্যামেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ’র টাঙ্গাইলের কার্যালয়ে কর্মরত আছেন।

প্রথমে ব্যক্তিগত উদ্যোগে অসহায় মানুষকে একবেলা খাবার দেওয়ার মাধ্যমে মানবিক কর্মযজ্ঞ শুরু করেন গিয়াস উদ্দিন। পরে তাঁর এই মানবিক কাজে এগিয়ে আসেন একই কোম্পানির হেলাল উদ্দিন সফল ও সোহেল রানা। এরপর তাদের মানবিক কাজ দেখে অনেকেই তাদের আর্থিক সহযোগিতা করে আসছে।

টাঙ্গাইল জেলা সদর রোড, নিরালা মোড়, বেবিস্ট্যান্ড, পুরাতন বাসস্ট্যান্ড, কুমুদিনী কলেজ গেট, নতুন বাসস্ট্যান্ড সহ শহরের অলিগলি ও ফুটপাতে অবস্থান করা অসহায়, ছিন্নমূল, শারীরিক প্রতিবন্ধী, ভিক্ষুক, রিকশাচালক, শ্রমজীবী মানুষের মাঝে ১৫ দিন ধরে প্যাকেট করা খাবার বিতরণ করছেন তারা।

পবিত্র রমজানে প্রতিদিন বিকালে দুজনকে নিয়ে মানুষের মাঝে ২০ থেকে ৫০ প্যাকেট খিচুড়ি বিতরণ করেন গিয়াস উদ্দিন। সপ্তাহে শুক্রবার ইফতারের আগে ৩০০ জনের হাতে তুলে দিচ্ছেন রান্না করা বিরিয়ানি খাবার।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গিয়াস উদ্দিন পৌর উদ্যানের সামনে শারীরিক ও মানসিক প্রতিবন্ধী এক বৃদ্ধ লোকটিকে নিজ হাতে খাইয়ে দিচ্ছে।

উদ্যোগ বিষয়ে জানতে চাইলে গিয়াস উদ্দিন বলেন, করোনা ভাইরাসের প্রভাব মোকাবিলায় সবকিছুই বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এতে সবচেয়ে বিপদে পড়েন শহরের অসহায়, দরিদ্র মানুষ। তারা খাবার সংকটে পড়েন। এই মানুষগুলোর কষ্টের কথা চিন্তা করেই নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী বেতনের কিছু অংশ দিয়ে তাঁদের মুখে একবেলা খাবার তুলে দেওয়ার উদ্যোগ নিই। এই কার্যক্রম সারা বছর চালু রাখতে চাই। এজন্য প্রবাসী সহ সমাজের সামর্থ্যবান লোকদের সহযোগিতা প্রয়োজন। তারা সহায়তা করলে আরো কিছু ক্ষুধার্তদের মুখে খাবার তুলে দিতে পারবো।

গিয়াস উদ্দিনের বিকাশ- ০১৭২০ ৩৫ ৭০ ৫৪

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া