‘কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট’ লিটনের বদলে মেহেদি

প্রকাশিত : ২৩ নভেম্বর, ২০১৯
গণবিপ্লব অনলাইন
ডেস্ক রিপোর্ট

খেলার খবর ২৩ নভেম্বর : গত ১ আগস্ট থেকে আইসিসির প্লেয়িং কন্ডিশনে এই নতুন নিয়ম যুক্ত হয়েছে। পুরুষ ও মহিলাদের সবরকম আন্তর্জাতিক ম্যাচে চালু হয়েছে ‘কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট’ নিয়ম। ভারত-বাংলাদেশ, দুই দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা আগেই বলেছিলেন, গোধূলির আলোয় এই বল খেলতে সমস্যায় পড়তে হতে পারে। তবে দেখা গেল বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা বিকেলের দিকেই গোলাপি বল খেলতে বেশ সমস্যায় পড়েছেন। নতুন রঙের বল জাজ্ করতে মুশকিলে পড়তে হয়েছে তাঁদের। বল লেট সুইং করছে। হাওয়ায় তুলানমূলক বেশি নড়াচড়া করছে। যার জেরে ব্যাটসম্যানদের সমস্যা বাড়ছে।

ইনিংসের ২১তম ওভারে শামির একটি ডেলিভারি ব্যাটে খেলতে পারলেন না লিটন দাস। ছাড়ার সময়ও পেলেন না। বল এসে সরাসরি লাগল হেলমেটে। আহত হলেন লিটন। তবুও ব্যাটিং করবেন বলে ঠিক করলেন। কিন্তু পরের ওভারে অস্বস্তি বোধ করায় মাঠ ছাড়তে হল তাঁকে। তাঁর বদলি হিসাবে নামলেন মেহেদি হাসান। তিনি অবশ্য কাজের কাজ করতে পারলেন না। লিটন ২৪ রানের মাথায় মাঠ ছেড়েছিলেন। মেহেদি করলেন মাত্র আট রান। লিটনের বদলে তিনি নামলেন কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট-এর নিয়ম মেনে। কী এই কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট! আইসিসি-র এই নিয়ম কেমন! আসুন জেনে নেওয়া যাক-

গত ১ আগস্ট থেকে আইসিসির প্লেয়িং কন্ডিশনে এই নতুন নিয়ম যুক্ত হয়েছে। পুরুষ ও মহিলাদের সবরকম আন্তর্জাতিক ম্যাচে চালু হয়েছে ‘কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট’ নিয়ম। বিশ্বব্যাপী প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটেও এই নিয়ম চালু হয়েছে। মাথায় বা ঘাড়ে আঘাত পাওয়া ক্রিকেটারের বদলে অন্য কেউ নামতে পারবেন। তিনি ব্যাটিং বোলিং সবকিছুই করতে পারবেন। খেলা চলাকালীন কোনও ক্রিকেটার যদি ঘাড় বা মাথায় আঘাত পান, যার ফলে তাঁর কনকাশন হতে পারে, সেক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট দলের মেডিকেল টিম কনকাশন নির্ধারণ করবে। কনকাশন টেস্ট পাশ করতে ব্যর্থ হলে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে রিপোর্ট জমা দিয়ে সেই দল বদলি ক্রিকেটারের জন্য আবেদন করতে পারবে।

বদলি ক্রিকেটারকে হতে হবে ‘লাইক-টু-লাইক’। অর্থাৎ, ব্যাটসম্যানের বদলে ব্যাটসম্যান, পেসারের পরিবর্তে পেসার, স্পিনারের বদলে স্পিনার, অথবা অলরাউন্ডারের বদলে অলরাউন্ডার। কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট হিসেবে ক্রিকেটারের নাম জমা দেবে সংশ্লিষ্ট দলের মেডিকেল টিম। লিটন দাসের পরিবর্তে নেমেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। এক্ষেত্র আইসিসির ‘লাইক-টু-লাইক’ নিয়ম পালন হয়নি। কারণ লিটন উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান। তাঁর পরিবর্তে একজন ব্যাটসম্যানই নামানোর সুযোগ থাকবে। কিন্তু বাংলাদেশ স্কোয়াডে অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান ছিল না। তাই বাধ্য হয়ে মেহেদিকে নামায় তারা। তবে ইডেন টেস্টে বোলিং করতে পারবেন না মেহেদি।

২০১৪-য় শেফিল্ড শিল্ডের ম্যাচে মাথায় আঘাত পেয়ে মারা যান অস্ট্রেলিয়ার ফিলিপ হিউজেস। তার পর থেকেই বদলি ক্রিকেটার নামানোর আলোচনা শুরু হয়। ২০১৬-১৭ মরশুমে ঘরোয়া ক্রিকেটে কনকাশন রিপ্লেসমেন্ট নিয়ম চালু করে অস্ট্রেলিয়া। তবে শেফিল্ড শিল্ডে সেই নিয়ম চালু করার জন্য আইসিসি-র অনুমতি পেতে অপেক্ষা করতে হয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে। ২০১৭ সালের মে মাসে আইসিসি শেষ পর্যন্ত অনুমতি দেয়।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ