গোপালপুরে সড়ক সংস্কার ও প্রসস্থকরণের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান

প্রকাশিত : ১৭ নভেম্বর, ২০১৬

এ কিউ রাসেল :

bus-off-news-photo-gopalpur-tangail

দেশের প্রাচীন জনপদ টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার প্রবেশদ্বার ঘাটাইল উপজেলার পোড়াবাড়ি থেকে সরিষাবাড়ি উপজেলার পিংনা পর্যন্ত দীর্ঘ ২২কিলোমিটার সড়ক অবিলম্বে সংস্কার ও প্রশস্থকরণের দাবিতে টাঙ্গাইল জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি, গোপালপুর প্রান্ত অফিসের আয়োজনে গত ১৪ নভেম্বর সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় নন্দনপুরস্থ বাসষ্টেশন মোড়ে গোপালপুর-ঢাকা সড়ক অবরোধ করে ঘন্টাব্যাপী এ মানবন্ধন কর্মসূচী পালন করে। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর কাছে সড়ক সংস্কার ও প্রশস্থকরণের দাবিতে স্মারক লিপি প্রদান করা হয়। মানববন্ধনে গোপালপুর বাস-মিনিবাস ও ট্রাক মালিক সমিতি, বাস কোচ ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়ন এবং ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন, ভ্যান, টেম্পু সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নসহ উপজেলার সর্বস্তরের কয়েক হাজার জনগণ অংশ গ্রহন করে।
মানববন্ধন চলাকালীন সময়ে বক্তব্য রাখেন, পৌর মেয়র ও টাঙ্গাইল জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি গোপালপুর শাখার প্রধান উপদেষ্টা মো. রকিবুল হক ছানা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) মরিয়ম আক্তার মুক্তা, বীরমুক্তিযোদ্ধা কাদের তালুকদার, গোপালপুর বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি মো. রহমতুল কিবরিয়া বেলাল, সিনিয়র সহ-সভাপতি সুভাস চন্দ্র কুন্ডু, সহ-সভাপতি সৈয়দ সোলায়মান বাবু, সাধারণ সম্পাদক চিত্তরঞ্জণ সাহা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার গিয়াস উদ্দিন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী রফিকুল হক রফিক, ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি তপন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আজাদ, ভ্যান, বাস শ্রমিক সমিতির সভাপতি মো. লাল মিঞা, সাধারণ সম্পাদক ইবনে খালিদ, ট্রাক শ্রমিক সমিতির সভাপতি মো. তারা মিয়া, সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান শাহীন, টেম্পু সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক শামীম আল মামুন প্রমুখ।
এসময় বক্তারা বলেন, দেশের প্রাচীন জনপদ গোপালপুর উপজেলার প্রবেশদ্বার ঘাটাইল উপজেলার পোড়াবাড়ি থেকে সরিষাবাড়ি উপজেলার পিংনা পর্যন্ত দীর্ঘ ২২সড়কটি দীর্ঘ দিন যাবৎ সংস্কার না হওয়ায় সড়কের বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সরু এপথেই গোপালপুর থেকে প্রতিদিন কয়েকশত যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাক ঢাকা, টাঙ্গাইলসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করে। গোপালপুর থেকে সড়ক পথে যাতায়াতের একমাত্র এসড়কটি যাতায়াতের অনুপযোগি হওয়ায় প্রতিনিয়ত দূর্ঘটনা ঘটছে। ঈদুল আজহায় ঢাকা থেকে বাড়ি ফেরার পথে পৌরশহরের ডুবাইল নামক স্থানে সড়ক দূর্ঘটনায় খন্দকার আসাদুজ্জামান একাডেমির দ্বাদশ শ্রেণির মেধাবি শিক্ষার্থী মো. রাসেল (১৮) নিহত হন। দেশের বৃহত্তম সার কারখানা যমুনা ফার্টিলাইজারের উৎপাদিত সার এ সড়ক পথে দেশের বিভিন্ন সাথে সরবরাহ করা হয়। এশিয়ার সর্ববৃহত্তম ২০১গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদটি উপজেলার পাথালিয়া গ্রামে গড়ে উঠায়, দেশ বিদেশী পর্যটকরা এপথেই যাতায়াত করায় প্রতিনিয়ত যানজট লেগেট থাকে। সড়কটিতে একটি বাস কিংবা ট্রাক চলাচল করলে অন্য একটি ভ্যান-রিকসা যাওয়ার জায়গা থাকে না। তাই সড়কটি অবিলম্বে সংস্কারসহ প্রশস্থ করার জন্য অবিলম্বে প্রধানমন্ত্রী এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া