টাঙ্গাইলে অতিরিক্ত বাস ভাড়া ও টিকেট কালোবাজারীর অভিযোগ

প্রকাশিত : ২৬ আগস্ট, ২০১৮
গণবিপ্লব
রিপোর্ট

স্টাফ রিপোর্টারঃ


কোরবানির ঈদ শেষ হতে না হতেই নিজ নিজ কর্মস্থলে যাওয়ার জন্য ব্যস্ত সবাই। টাঙ্গাইল নতুন বাসস্টান্ডে ভিড় করছেন সাধারণ যাত্রীরা। আর এই সুযোগে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা সাধারণ যাত্রীদের কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, রবিবার (২৬ আগষ্ট) দুপুরে নতুন বাসস্ট্যান্ডে- সোনিয়া,নিরালা সুপার সার্ভিস ও এসি বাস সার্ভিস সকাল-সন্ধ্যাসহ বিভিন্ন টিকিট কাউন্টারে যাত্রীদের উপচে পরা ভীড়।

ঢাকা মুখি বাস যাত্রীর অভিযোগ করে বলেন. ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাড়িয়ে থেকে অতিরিক্ত মূল্য টিকেট সংগ্রহ করতে হচ্ছে। নিরালা সুপার এর ভাড়া নিচ্ছে ১৬০ টাকার পরিবর্তে ২৫০ টাকা। এসি বাস সোনিয়া ও সকাল-সন্ধার ভাড়া ২৫০ টাকার পরিবর্তে ৪০০ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। এ ছাড়া ধলেশ্বরী বাসের ভাড়া ১৩০ টাকার পবিবর্তে ২০০ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। নিরালা পবিবহনের কাউন্টার মাস্টারের বিরুদ্ধে টিকেট কালোবাজারীর অভিযোগ করলেন সাধারণ যাত্রীরা।

এ সময় আমরা যাত্রীদের সাথে কথা বলে জানতে পারি,ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাড়িয়ে থাকতে হচ্ছে আমাদের। অতিরিক্ত টাকা দিয়ে টিকেট সংগ্রহ করতে গিয়ে দেখা যাচ্ছে এভেল এভেল বাস থাকা সরতেও আমরা টিকেট নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পাচ্ছি না। কারণ যাত্রীদের অভিযোগ টিকেট না কী কালোবাজারীর মাধ্যমে বিক্রি হচ্ছে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি সভাপতি খ. ইকবাল হোসেন বর্ধিত ভাড়া আদায়ের কথা স্বীকার করে বলেন, ঢাকা থেকে গাড়ী খালি ফেরত আসে, যে কারনে আমাদের এই বর্ধিত ভাড়া নিতে হচ্ছে। এই বর্ধিত ভাড়া না নিলে গাড়ী মালিকরা অন্য রুটে গাড়ী চালাবে। তবে কেউ যদি টিকেট কালো বাজারী করে তার বিরুদ্ধে আইনগত ও সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বধিত ভাড়া ও টিকেট কালো বাজারী প্রসঙ্গে টাঙ্গাইল নতুন বাস স্ট্যান্ডে চলা ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্টেট তারিন মসরুর বলেন“,আমরা খবর পেয়েছি নির্ধারিত বাস ভাড়া চেয়ে বেশী ভাড়া নেওয়া হচ্ছে এবং টিকেট কালোবাজারের অভিযোগ আছে। বিশেষ করে টিকেট কালো বাজারী যদি দেখি আমরা সাথে সাথে ব্যবস্থা নেব”।

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ