টাঙ্গাইলে ধর্ষণ মামলায় আরো ১ জনের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত : ১৪ অক্টোবর, ২০২০

‘টাঙ্গাইলে ধর্ষণ মামলায় দোষী সাব্যস্ত করে আরো একজনের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বুধবার টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক খালেদা ইয়াসমিন এই দণ্ডাদেশ দেন। ।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হলেন টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলার আউশনারা গ্রামের মৃত নিয়ত আলীর ছেলে আব্বাস আলী (৩৩)। অপরদিকে একই অপরাধে নাগরপুর উপজেলার রাথুরা গ্রামের আজিম উদ্দিনের ছেলে মো. নাজমুলকেও যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দেন আদালত। তারা দুজনই পলাতক রয়েছেন। এছাড়া ধর্ষণের ফলে জন্ম নেয়া দুই শিশু আদালতের এই রায়ের মাধ্যমে তাদের পিতৃপরিচয় ফিরে পেয়েছে।

টাঙ্গাইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি একেএম নাছিমুল আক্তার নাছিম জানান, গত ২০০৮ সালের ১২ জুন বিকেলে আসামি আব্বাস আলী (৩৩) একই এলাকার ভিকটিমের বাড়িতে গিয়ে একটি ছাপড়া ঘরে ভিকটিমকে ধর্ষণ করে। ফলে ভিকটিম গর্ভবতী হয়ে পড়েন এবং পরবর্তীতে তিনি একটি ছেলে সন্তানের জন্ম দেন। এ নিয়ে গত ২০০৯ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি তিনি আদালতে মামলা করেন।

অপর মামলায় আসামি মো. নাজমুল গত ২০০৮ সালের ৬ ডিসেম্বর রাতে টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের ৪নং পুনর্বাসন এলাকায় অভিযোগকারী ভিকটিমকে বাড়ির বাইরে ডেকে নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ফলে ভিকটিম গর্ভবতী হয়ে পড়েন এবং পরবর্তীতে তিনি একটি মেয়ে সন্তানের জন্ম দেন। এ নিয়ে গত ২০০৯ সালের ১ জুন ভিকটিম আদালতে মামলা করেন।

বিচারক তার রায়ে উল্লেখ করেন, ধর্ষণের ফলে জন্ম নেয়া দুই শিশু দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের সন্তান হিসেবে সর্বক্ষেত্রে পরিচিত হবে। এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে টাঙ্গাইলের জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দেন আদালত।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া