টাঙ্গাইল জেলা লকডাউনে যা থাকছে

প্রকাশিত : ৭ এপ্রিল, ২০২০

টাঙ্গাইল ৭ এপ্রিল : করোনাভাইরাস (কোভিট-১৯) সংক্রমনের ঝুঁকি এড়াতে টাঙ্গাইল জেলা মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) বিকাল চারটা থেকে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রশাসন। 

লকডাউন চলাকালে টাঙ্গাইল জেলার সীমান্তবর্তী এলাকাসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে বিশেষ চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। একই সঙ্গে টাঙ্গাইল পৌর এলাকার চারপাশে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। যাতে করে শহরে বা জেলায় কোন গণপরিবহনসহ কোন ব্যক্তি প্রবেশ করতে না পারে। আবার কেউ যেন বাইরে যেতে না পারে। 

টাঙ্গাইল সার্কিট হাউজে মঙ্গলবার ৯৭ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে এক সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক, সদর আসনের সংসদ সদস্য মো. ছানোয়ার হোসেন, লে: কর্নেল মোহাম্মদ সোহেল রানা, পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় (বিপিএম), সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মোশারফ হোসেন খান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহীদ উল্লাহ, পৌর মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি জাফর আহমেদ প্রমুখ।

টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম গণবিপ্লব-কে জানান, করোনা প্রতিরোধে সকল জনসাধারণকে ঘরে থাকতে হবে এবং সকল সীমান্ত এলাকায় চেক পোস্ট বসিয়ে টাঙ্গাইল জেলাকে জনস্বার্থে মঙ্গলবার বিকেল চারটা থেকে লক ডাউন করা হবে। টাঙ্গাইল জেলা ও শহরে কোন প্রকার ইজিবাইক, সিএনজি চালিত অটোরিক্সা, ভ্যান বা সকল প্রকার যানবাহন চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তবে ওষুধ, খাদ্য পণ্যবাহী যানবাহন, পৌরসভার পরিচ্ছন্নতা কর্মী, সংবাদকর্মীরা এ সিদ্ধান্তের আওতার বাইরে থাকবে। সভা শেষ করে শহরের ব্যস্ততম পার্কবাজার পরিদর্শন করা হয় এবং বাজারে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কাঁচা বাজার, পার্শ্ববর্তী ঈদগাহ ময়দানে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। আর এই সিদ্ধান্ত অমান্যকারিদের বিরুদ্ধে আইনশংখলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে।

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ। কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে নিন।