টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর বিকল্প সড়ক নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার’র অভিযোগ

প্রকাশিত : ৩০ জানুয়ারী, ২০১৯
নিজস্ব প্রতিবেদক
টাঙ্গাইল

টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর সড়কে শুরু হয়েছে ব্রীজ নির্মাণ ও সড়ক সম্প্রসারণের কাজ। ফলে এখানে যান চলাচলের জন্য নির্মাণ করা হচ্ছে বিকল্প সড়ক (ডাইভারশন)। বিকল্প সড়ক নির্মাণে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে দায়সারা কাজ করার অভিযোগ তুলেছেন এলাকাবাসী। প্রতিবাদে বুধবার (৩০ জানুয়ারি) সকালে সড়কে নারান্দিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিভোক্ষ করে সিডিউল অনযায়ী কাজ করার দাবি জানিয়ছেন তারা। তবে দায়িত্বপ্রাপ্ত উপ-সহকারি প্রকৌশলী বলেছেন কৃর্তপক্ষের নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করা হচ্ছে। ঠিকাদারের গাফিলতি ও সড়ক বিভাগের অবহেলাকেই দায়ী করছেন এলাকাবাসী।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, টাঙ্গাইল-ভূঞাপুর সড়কের ঝুঁকিপূর্ণ ব্রীজগুলো নতুন করে নির্মাণের জন্য ভেঙে ফেলা হচ্ছে। এদিকে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে সড়কে তৈরি করা হচ্ছে বিকল্প সড়ক। দুই স্তরের ইট দিয়ে বিকল্প সড়ক নির্মাণে কথা থাকলেও ব্যবহার করা হচ্ছে ভাঙ্গা ব্রীজেরই আবর্জনা। আবার একেকটি বিকল্প সড়ক একেকভাবে নির্মাণ করা হচ্ছে। রৌহা বিকল্প সড়কে প্রতিনিয়তই ঢেবে যাচ্ছে যানবাহন। মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) একটি মালবাহী ট্রাক ঢেবে গিয়ে ৪ ঘন্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। হাজার হাজার যাত্রী চরম ভোগান্তির শিকার হন। অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহনগুলো। এই সড়কে নির্মাণকৃত ৫ টি বিকল্প সড়কেরই একই অবন্থা।

আমির আলী নামের এক বাস চালক গণবিপ্লবকে বলেন, এতো নিম্নমানের ডাইভারশন দিয়ে আমরা অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করি। কখন যে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে? সোনিয়া আক্তার নামের বাসযাত্রী গণবিপ্লবকে বলেন, এই বিকল্প সড়ক দিয়ে বাসে চলাচল করতে আমার ভয় লাগে। কয়েকজন যান চালক গণবিপ্লবকে বলেন, যেভাবে ডাইভারশন সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে একটি বৃষ্টি হলেই যান চলাচলের অযোগ্য হয়ে যাবে। একদিকে সড়কে যেমন ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের সামগ্রী। অন্যদিকে বিকল্প সড়ক গুলো অত্যন্ত নিচু।

কালিহাতীর নারান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যার শুকুর মামুদ গণবিপ্লবকে বলেন, নারান্দিয়া বাসস্ট্যান্ড ব্রীজের ভাঙা আবর্জনা দিয়েই ডাইভারশন সড়ক তৈরি করা হচ্ছে। তাই এলাকাবাসী প্রতিবাদ জানিয়েছেন। আমরা চাই সিডিউল অনুযায়ী ভাল মানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে বিকল্প সড়ক নির্মাণ করা হোক।

এই সড়কে দায়িত্বপ্রাপ্ত টাঙ্গাইলের সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-সহকারি প্রকৌশলী তারেক হোসেন গণবিপ্লবকে বলেন, আমরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা অনুযায়ী বিকল্প সড়ক নির্মাণ করছি। তবে ঠিকাদারের সাথে যোগাযোগ করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া