নাগরপুরে ভিপির বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ; গ্রেপ্তার ১

প্রকাশিত : ২০ মার্চ, ২০২০

নাগরপুর ২০ মার্চ : টাঙ্গাইলের নাগরপুরে সাবেক এক ভিপির বিরুদ্ধে নাগরপুর সরকারি কলেজের এক শিক্ষিকাকে শ্লীলতাহানীর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নাগরপুর থানায় তিনজনকে আসামী করে অভিযোগ দায়ের করলে থানা পুলিশ শুক্রবার সকালে বাবু নামে একজনকে প্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরন করেছে।

মামলার অন্য আসামীরা হলো নাগরপুর সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের ছাত্রলীগ মনোনীত সাবেক ভিপি ও কলেজ ছাত্রলীগ শাখার সাবেক সাধারন সম্পাদক আল-মামুন, উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাদিকুর রহমান বিপ্লব।

মামলা সূত্রে জানা যায়, নাগরপুর সরকারি কলেজের রসায়ন বিভাগের প্রভাষক বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) রাতে চশমা মেরামত করতে গেলে দোকানে কাউকে না পেয়ে দাড়িয়ে থাকেন। এসময় মোটরসাইকেল করে সাবেক ভিপি মামুন দোকানে এসে বসলে শিক্ষিকা তাকে দোকানদারের কথা জিজ্ঞেস করলে শিক্ষিকাকে মামুন টিজমূলক কথা বলেন। শিক্ষিকা টিজের প্রতিবাদ করলে বাবু ও বিপ্লব এগিয়ে এসে মামুনের সাথে যুক্ত হয়ে শিক্ষিকাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে, মারতে উদ্যত হয় এবং টান দিয়ে মুখের হিজাব খুলে ফেলে।

এব্যাপারে ঘটনার স্বীকার কলেজ শিক্ষিকা গণবিপ্লব-কে বলেন, যেখানে আমি একজন সরকারি কর্মকর্তা হয়েও নিরাপদ নই তাহলে সাধারন মেয়েদের অবস্থার কথা একবার চিন্তা করুন। আর আমি এজন্যই এদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করছি।

এ ব্যাপারে ভিপি আল-মামুন ঘটনা অস্বীকার করে গণবিপ্লবকে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য ষড়যন্ত্রমূলক এ মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

নাগরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ গণবিপ্লব-কে বলেন, নাগরপুর সরকারি কলেজের রসায়ন বিভাগের প্রভাষক শ্লীলতাহানীর অভিযোগ এনে সাবেক ভিপি মামুন সহ তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে ১জনকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া