প্রকাশকাল: ২৯ জানুয়ারী, ২০১৮

মধুপুর পৌর আ’লীগ দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে

মধুপুর প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের মধুপুর পৌর আওয়ামী লীগ দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে আহ্বায়ক কমিটি দিয়ে চলছে। দীর্ঘদিনেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় হতাশ ও নিস্ক্রিয় হয়ে পড়ছেন পৌর আওয়ামী লীগের মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীরা।
উপজেলা আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, বিগত ২০০৫ সালে সিদ্দিক হোসেন খানকে সভাপতি ও মাসুদ পারভেজকে সাধারণ সম্পাদক করে মধুপুর পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়। ৪১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির বাকি সবাই পান সদস্যপদ। গঠনের পর কমিটির পক্ষ থেকে যত দ্রুত সম্ভব পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে বলে জানানো হয়। কিন্তু এরপর ১৩ বছর পার হয়ে গেলেও আর পূর্ণাঙ্গ কমিটি হয়নি। ওই আহ্বায়ক কমিটির অনেকেই পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের পদ গ্রহণ করে সেখানে সক্রিয় হয়েছেন। অনেকে হয়ে গেছেন নিস্ক্রিয়। এর ফলে এখন পৌর আওয়ামী লীগ নামসর্বস্ব একটি সংগঠনে পরিণিত হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আহ্বায়ক কমিটির অন্তত পাঁচজন নেতা জানান, মধুপুর পৌর এলাকায় আওয়ামী লীগের সমর্থক অনেক। প্রতিটি ওয়ার্ডেই নেতাকর্মী-সমর্থকদের মূল্যায়ন করা যাচ্ছে না। পৌর আওয়ামী লীগ এখন সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের সংগঠনে পরিণিত হয়েছে। আহ্বায়ক কমিটির একাধিক সদস্য বলেন, দীর্ঘ ১৩ বছর আগে কমিটি গঠনের পর একটি সভাও হয়নি। পরে তারা আস্তে আস্তে নিস্ক্রিয় হয়ে গেছেন। অনেকেই চলে গেছেন উপজেলা কমিটিতে। এখন দলীয় যা কর্মসূচি, সব উপজেলা কমিটির ব্যানারেই পালিত হয়। সেখানে পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বক্তব্য দেন। শুধু এটুকু অস্তিত্বই রয়েছে পৌর আওয়ামী লীগের। কমিটির এসব সদস্য সম্মেলনের মাধ্যমে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে বলেন, প্রথম শ্রেনীর পৌরসভা কমিটিগুলোকে উপজেলা কমিটির সমান সাংগঠনিক মর্যাদা দেয়া হয়। তাই পূর্ণাঙ্গ কমিটি হলে অনেক নেতাকর্মীর মূল্যায়নের সুযোগ তৈরি হবে। সেই সঙ্গে পৌর এলাকায় সংগঠন শক্তিশালী হবে।
পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও মধুপুর পৌরসভার মেয়র মাসুদ পারভেজ জানান, পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হলেও তারা আহ্বায়ক কমিটির মাধ্যমে পৌর এলাকায় দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করেন। এতো দিনেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ার পেছনে আহ্বায়ক কমিটি হওয়ার পরপর সরকার বিরোধী আন্দোলনে ব্যস্ত থাকা এবং ১/১১ এর মতো সমস্যা তৈরি হওয়াকে তিনি কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন।
পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির কমিটির সভাপতি সিদ্দিক হোসেন খান জানান, ওয়ার্ড কমিটিগুলোর গঠন শেষ করার পর সম্মেলনের উদ্যোগ নেয়া হবে।

এ রকম আরোও খবর

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ