মাভাবিপ্রবির নিরাপত্তা শাখা ও বঙ্গবন্ধু হলের অফিস কক্ষের তালা খুলেছে

প্রকাশিত : ৪ জুলাই, ২০১৮
গণবিপ্লব
রিপোর্ট

মাভাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের সন্তোষস্থ মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা শাখার অফিস ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের অফিস কক্ষের তালা চার দিন পর বুধবার(৪ জুলাই) খুলে দেয়া হয়েছে।

বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র নিরাপত্তা কর্মকর্তা মো. রবিউল ইসলাম ও শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে প্রক্টরের কক্ষে এক সমঝোতা বৈঠকে সিদ্ধান্তের পর শিক্ষার্থীরা ওই তালা খুলে দেয়।

এরআগে গত রোববার(১ জুলাই) বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র নিরাপত্তা কর্মকর্তা মো. রবিউল ইসলামের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল গেটের জন্য নিরাপত্তা প্রহরী দাবি করে শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীদের সাথে মো. রবিউল ইসলামের কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা নিরাপত্তা শাখার অফিস কক্ষ তালাবদ্ধ করে। অপরদিকে একই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ঈমামকে দুই বছর যাবত বেতন না দেয়ার জন্য হলের অফিস কক্ষগুলো তালাবদ্ধ করে দেয় শিক্ষার্থীরা।

সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবি, নিরাপত্তা সংকটের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রায়শই বহিরাগত হামলার শিকার হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়েরা ইভটিজিং এর শিকার হয়, চুরির ঘটনা ঘটে, মাদক সেবীরা এবং মাদক ব্যবসায়ীরা মাদকের সেবন ও বিক্রির অভয়ারণ্য হিসেবে ক্যাম্পাসকে ব্যবহার করে। ফলে শিক্ষার্থীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগে। শিক্ষার্থীরা মনে করেন, বঙ্গবন্ধু হলের ঈমামকে দুই বছর যাবত বেতন না দেয়া নৈতিকতা পরিপন্থী- যা ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হানার শামিল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র নিরাপত্তা কর্মকর্তা মো. রবিউল ইসলাম বলেন, প্রায় ৫৭ একর জায়গার উপর প্রতিষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫টি গেট, ৩টি একাডেমিক ভবন, ৫টি হল, প্রসাশনিক ভবন, ভিসির বাসভবন, অতিথি ভবন, ক্যাফেটেরিয়া, শিক্ষক-কর্মকর্তা ডরমেটরী এবং ৩য়-৪র্থ শ্রেণির কর্মচারী ডরমেটরী রয়েছে। এ জন্য কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা প্রহরী রয়েছে মাত্র ৩০ জন। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিতরে রয়েছে ভাসানীর মাজার, ৫টি পাবলিক রাস্তা, ২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২টি উচ্চ বিদ্যালয়, একটি কলেজ, একটি কেজি স্কুল, একটি হেফজ খানা এবং একটি স্থানীয় মন্দির।
রবিউল বলেন, ৮ ঘণ্টার রুটিন ডিউটিতে ৬ জন নিরাপত্তা প্রহরীকে ওভার টাইম করালেও বিভিন্ন জায়গা থেকে যায় নিরাপত্তা প্রহরী শূন্য। শিক্ষার্থীরা তালাবদ্ধ করার পর বুধবার প্রক্টর মহোদয়ের কক্ষে সমঝোতা বৈঠকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তায় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেয়া হলে শিক্ষার্থীরা তালা খুলে নেয়।

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ