মির্জাপুরে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬

প্রকাশিত : ৯ মার্চ, ২০২০

মির্জাপুর ৯ মার্চ : টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে মাটি ভর্তি ড্রাম ট্রাক যাত্রীবাহি সিএনজি চালিত অটো রিকসা ও প্রাইভেটকারের মধ্যে তৃতীয় সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬ জনে দাঁড়িয়েছে ও ২ জন যাত্রী আহত হয়েছেন।

সোমবার (৯ মার্চ) সকাল সাড়ে দশটার দিকে উপজেলার গোড়াই-সখীপুর সড়কের বেলতৈল বটতলা নামকস্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

উপজেলার আজগানা ইউনিয়নের বেলতৈল গ্রামের খলিল মিয়া ছেলে হৃদয়, কুড়াতলী গ্রামের জহুর উদ্দিনের ছেলে সোনাম উদ্দিন, একই গ্রামের মাশরাফুল, হাফিজ উদ্দিন, হাফিজের মেয়ে রুনা আক্তার এবং ঘাঘরাই গ্রামের জাকির হোসেন। নিহতরা প্রত্যেকেই অটোরিকশার যাত্রী ছিলেন। হাসপাতালে ভর্তি আছেন আনোয়ার নামে একজন। আহত আরেকজন প্রাইভেটকার চালককে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ গণবিপ্লবকে জানায়, সোমবার সকালে সখীপুর দিক থেকে হাটুভাঙার দিকে ছেড়ে আসা মার্টিভর্তি দ্রুতগতির একটি ড্রাম ট্রাক সামনে থাকা যাত্রীবাহী একটি অটোরিকশাকে পাশ কাটাতে গিয়ে যানটিতে চাপা দেয়। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি প্রাইভেটকারের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে প্রাইভেটকারটিও দুমড়ে-মুচড়ে যায়।

দুর্ঘটনায় অটোটিও উল্টে দুমড়ে মুচড়ে গেলে যানটির যাত্রী হৃদয় ও মাশরাফুল ঘটনাস্থলে মারা যায়। আরেক যাত্রী সোনামকে হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। আহত চারজনকে উদ্ধার করে কুমুদিনী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে সেখানে মারা যান আরও তিনজন।

প্রাইভেটকারের চালক আহত রাব্বি গণবিপ্লবকে জানান, ড্রাম ট্রাকের চালক সিএনজিকে ওভারটেক করতে গিয়ে না পেরে সিএনজিকে চাপা দেয় এবং প্রাইভেটকারের সঙ্গে সংঘর্ষ বাদে।

এ বিষয়ে মির্জাপুরের দেওহাটা পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে গণবিপ্লবকে বলেন, ড্রাক ট্রাক আটক করা হলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে। আইনী প্রক্রিয়া শেষে নিহতদের মরদেহ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হবে।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া