রাজশাহীতে বিদেশী শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

প্রকাশিত : ৩০ মার্চ, ২০১৭
গণবিপ্লব
রিপোর্ট
রাজশাহী প্রতিনিধিঃ 
রাজশাহী ইসলামি ব্যাংক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ছাত্রীনিবাসে পাওয়া গেছে এক বিদেশী শিক্ষার্থীর লাশ। নিহত রাউধা আথিফের লাশ নিতে বৃহস্পতিবার রাজশাহী যাওয়ার কথা রয়েছে মালদ্বীপের দূতাবাস প্রতিনিধি দলের। রাউধার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তারা রাজশাহী পৌঁছবেন। এর পর রাউধার লাশের ময়নাতদন্ত হবে কি না সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের মুখপাত্র ও সিনিয়র সহকারি কমিশনার (এসি) ইফতে খায়ের আলম।
কুড়ি বছর বয়সের আন্তর্জাতিক মডেল তারকা রাউধা মালদ্বীপের নাগরিক। গত বছরের ২২ অক্টোবর ভারত থেকে প্রকাশিত খ্যাতনামা আন্তর্জাতিক ফ্যাশন পত্রিকা ‘ভোগ’-এর নবম বর্ষপূর্তি সংখ্যার প্রচ্ছদে মডেল হিসেবে তার ছবি ছাপা হয়। নীল নয়না হওয়ায় মডেল তারকা হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্র মডেল হিসেবে বেশ সুনাম অর্জন করেন রাউধা।
মালদ্বীপের মেল এলাকার মোহাম্মাদ আথিফ-এর মেয়ে ডাক্তারি পড়তে রাজশাহী ইসলামি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। গত বছরের ১৪ জানুয়ারি রাউধা ছাত্রীনিবাসের দ্বিতীয় তলার ২০৯ নম্বর রুমে উঠেন। বুধবার দুপুরে সে রুম থেকে পুলিশ রাউধার লাশ উদ্ধার করে।
লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন ‘ভোগ’ কভারগার্ল হওয়ার সুযোগ পাওয়া নিহত রাউধা আথিফ ছিলেন মালদ্বীপের সেলেব্রিটি মডেল। নিজ দেশের বাইরে ভারতেও তিনি মডেলিং করেছেন। তবে সহপাঠীদের সঙ্গে তার সম্পর্ক খুব একটা সাবলীল ছিল না। র‌্যাম্পে ঝড় তোলা এই মডেল নিজের মতোই থাকতেন, ওয়েস্টার্ন পোশাকেই তিনি ছিলেন অভ্যস্ত। কিন্তু তার এ ধরনের পোশাক-পরিচ্ছদ আর লাইফস্টাইল সহজভাবে নিতে পারেনি ইসলামি ব্যাংক মেডিকেল কলেজের একটি মহল। এ ব্যাপারে রাজশাহী ইসলামি ব্যাংক মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ একাধিকবার তাকে সতর্কও করেছিল বলে জানিয়েছে রাউধার সহপাঠীরা।
এসি ইফতে খায়ের আলম বলেন, লাশ উদ্ধারের পর মালদ্বীপের দূতাবাসকে জানানো হয়। দূতাবাস থেকে পুলিশকে অনুরোধ করেছে, তাদের  প্রতিনিধিরা রাজশাহীতে না যাওয়া পর্যন্ত যেন রাউধার ময়নাতদন্ত না করা হয়। এ ছাড়াও রাউধার পরিবারের সদস্যদের খবর দেয়া হয়েছিল। তারাও দূতাবাসের  প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আসবেন বলে জানান তিনি।
এসি ইফতে খায়ের বলেন, রাউধার লাশ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হিমাগারে রাখা হয়েছে। মালদ্বীপ দূতাবাসের  প্রতিনিধি দল ও রাউধার পরিবারের সদস্যরা আসার পর সিদ্ধান্ত হবে লাশের ময়নাতদন্ত হবে কি না।
ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, রাউধা আত্মহত্যা করেছে। সিলিং ফ্যানের সঙ্গে কাপড় পেঁচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন। তবে কখন সে আত্মহত্যা করেছেন তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কিন্তু কেন আত্মহত্যা করলেন সে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।
সহপাঠীদের বরাত দিয়ে পুলিশ কমিশনার আরো বলেছিলেন, রাউধা দেরী করে ঘুম থেকে উঠতেন। কিন্তু বেলা ১১টার দিকে তিনি না ওঠায় তার সহপাঠীরা তার রুমে যায় এবং জানালা দিয়ে দেখতে পায় রাউধা সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছে। তারাই রুমে গিয়ে রাউধার লাশ নামায়। পুলিশ গিয়ে তার লাশ বেডের উপর পেয়েছে বলে জানান তিনি।
নাম  প্রকাশ না করার শর্তে তার সহপাঠীরা বলেন, রাউধা ধনী পরিবারের মেয়ে। নীল নয়নার অধিকারী রাউধা আন্তর্জাতিক খ্যাতনামা মডেল ছিলেন। তার বড় ভাইও মডেল তারকা। ইউরোপে শৈশব কাটানো রাউথা পাশ্চাত্যে লাইফস্টাইলে ছিলেন অভ্যস্ত। তার চলাফেরা মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের পছন্দ ছিল না। তার আচার-আচরণে পরিবর্তন আনার জন্য কয়েক বার কলেজ কর্তৃপক্ষ তাকে সতর্ক করে এবং ইসলামি পোশাক পড়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করেছিল বলে সহপাঠীরা জানান।
উল্লেখ্য, রাউধা আথিফ চিকিৎসক হওয়ার জন্য পড়াশোনা করলেও তিনি মডেলিংয়ের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। বিখ্যাত সাময়িকী ‘ভোগ’-এর ২০১৬ সালের অক্টোবরে তাদের নবম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সংখ্যায় এশিয়ার বিভিন্ন দেশের মডেলদের নিয়ে  প্রচ্ছদ  প্রতিবেদন করে। তাতে স্থান পেয়েছিলেন মালদ্বীপের নীলনয়না এই মডেল।

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ