সংবাদ প্রকাশের পর ইয়াবার গডফাদার শফিক বেপরোয়া

প্রকাশিত : ২২ মে, ২০২০

টাঙ্গাইল থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক গণবিপ্লব প্রিন্ট সংস্করণে রোববার (১৭ মে) ২৫ তম সংখ্যায় ও অনলাইন সংস্করণে ১৮ মে ‘শফিক টাঙ্গাইল শহরের ইয়াবার গডফাদার’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর থেকে আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

যেখানে টাঙ্গাইলের সুযোগ্য পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় (বিপিএম) রাহু গ্রাস মাদক থেকে জেলাবাসিকে মুক্ত রাখতে দিন রাত কাজ করে যাচ্ছে। সেখানে কিছু প্রভাবশালী ও পালিত সন্ত্রসী বাহিনীর ছত্রছায়ায় মাদক কারবারি চলছে শহরের প্রাণকেন্দ্রের শান্তিকুঞ্জ মোড়ের স্বপ্নীল ষ্টোরে। এই স্টোরের প্রো. শফিকুল ইসলাম শফিক দীর্ঘদিন যাবত টাঙ্গাইল শহরে ২৫০ থেকে ৩০০ পিস ইয়াবা খুচরা ও মাদক ব্যবসায়ীদের চাহিদা মত পাইকারি বিক্রি করে আসছে।

জানা যায়, শফিকুল ইসলাম শফিক ২০১৯ সালে মডেল থানা পুলিশ ও র‍্যাবের হাতে একাধিকবার আটক হয়ে কয়েকবার কারা ভোগ করেন। ইয়াবার ব্যবসার কারনে তার ছোট ভাই টাঙ্গাইল মডেল থানার পুলিশ সদস্যরা আটক করতে গেলে হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হয়। তার পর থেকে শফিক হয়ে উঠেন শহরের ইয়াবার একজন বড় ডিলার। ইয়াবা ব্যবসা করে এখন তিনি বর্তমানে কোটি টাকার মালিক।

এ বিষয়ে গত ১৭ মে শফিকে মুঠোফোনে মাদক বিক্রির অভিযোগের কথা জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, আমি বিক্রি করি না। আগে নিজেই সেবন করেছি কিন্তু এখন আর সেবনও করি না।

এ প্রসঙ্গে টাঙ্গাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন’র সরকারি নাম্বারে যোগাযোগ করা হলেও উনার সাথে কথা বলা সম্বব হয়নি।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া