সখীপুরে দুই নারীর আগমনে ১০ জন অজ্ঞান

প্রকাশিত : ৭ জুলাই, ২০১৮
গণবিপ্লব
রিপোর্ট

সখীপুর প্রতিনিধিঃ

টাঙ্গাইলের সখীপুরে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া একই পরিবারের ১০ জনকে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে সখীপুর পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের তালুকদার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়দের ধারনা অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা বাড়িতে লুটপাট করার উদ্দেশ্যেই নেশাজাতীয় কোনো কিছু তাদের খাইয়েছে।

এ ঘটনায় আহতরা হলেন সখীপুর প্রতিমা বংকী আলিম মাদ্রাসার অর্থনীতি বিষয়ের সহকারী অধ্যাপক মিনহাজ উদ্দিন তালুকদার (৫০), তাঁর স্ত্রী আনোয়ার হোসেন তালুকদার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মিনা পারভীন (৪০), তাঁদের দুই সন্তান মিরাজ তালুকদার (১৪) ও মেরিনা তালুকদার (৭), মিনহাজ তালুকদারের শ্যালক জুয়েল আহমেদ (৩৫), গৃহকর্মী সখিনা বেগম (৪০), মিনহাজের ভাবি বছিরন নেছা (৪০), মিনহাজ তালুকদারের ভাতিজা সবুজ তালুকদার (২৮), সবুজের স্ত্রী সুপ্তি আক্তার (১৮) ও সবুজের বোন সাথী তালুকদার (২৫)।

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়াদের দেয়া বক্তব্যে জানা যায়, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে মিনহাজ তালুকদারের মেয়ে মেরিনা তালুকদার হারমোনিয়াম বাজিয়ে গান করছিল। ওই সময় ওই বাড়িতে দুইজন মহিলা পাশের বাড়ির মেহমান দাবি করে ঘরে ঢুকে ওই মেয়ের গান শোনেন। এক পর্যায়ে ঘন্টাখানেক পর অপরিচিত আরেক ব্যক্তি ওই দুই মহিলাকে ডেকে নিয়ে যান। দুপুরের খাবার শেষে তাদের বমি বমি ভাব হয় এবং মাথা ঘোরায়। এদের মধ্যে অনেকেই বাড়িতেই আবার কেউ কেউ হাসপাতালে এসেও অজ্ঞান হয়ে পড়েন। তাদের ধারনা অপরিচিত মহিলারাই নেশা জাতীয় কিছু খাবারে মিশিয়ে দিয়ে গেছেন।

সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শামছুল আলম জানান, অজ্ঞান হয়ে পড়া রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম তুহীন আলী জানান, পুলিশ বিষয়টি নজরে নিয়েছে। অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া রোগীদের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত দিন

You must be Logged in to post comment.

এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ