সখীপুরে সন্ত্রাসী হামলায় ছাত্রলীগ নেতাসহ আহত ৩

প্রকাশিত : ১৫ নভেম্বর, ২০১৯

সখীপুর ১৫ নভেম্বর : টাঙ্গাইলের সখীপুরে সন্ত্রাসী হামলায় ছাত্রলীগ নেতা আলভী খানসহ তিন জন গুরুতর আহত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মুঠোফোনে ডেকে নিয়ে বাবার সামনেই উপজেলার নলুয়া হাইস্কুল মাঠে তাদেরকে রাম দা দিয়ে কুপিয়ে আহত করে সন্ত্রাসীরা। গুরুতর আহত অবস্থায় রাতেই তাদেরকে উদ্ধার করে সখীপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে আলভীকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আহতরা হচ্ছে নলুয়া গ্রামের মোতালেব খানের ছেলে ও সরকারি মুজিব কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র যাদবপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য আলভী খান, একই গ্রামের মোস্তাক আহমেদের ছেলে আরাফাত রহমান (১৮) এবং আবদুল কাদেরের ছেলে সাজিদ হাসান (২০)।

এ ঘটনায় আলভীর বাবা মোতালেব খান বাদী হয়ে ওই রাতেই হামলাকারী বোয়ালী ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র নলুয়া আড়ালিয়া পাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য সিদ্দিক হোসেনের ছেলে সোহাগ আহমেদকে প্রধান আসামি করে মামলা করেছেন।

জানা যায়, গত ১৩ নভেম্বর বিকেলে ছাত্রলীগ নেতা আলভী খান নলুয়া বাজারের তালতলা স্ট্রেশনে গেলে একই গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য সিদ্দিক হোসেনের ছেলে সোহাগ আহমেদের কথা কাটাকাটি হয়। পরের দিন ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় বিষয়টি মীমাংসার কথা বলে সোহাগের বাবা সিদ্দিক হোসেন আলভীর বাবা মোতালেব খানকে মুঠোফোনে আলভীকে নিয়ে নলুয়া বাছেদ খান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আসতে বলে। পরে মোতালেব খান ছেলে আলভীকে নিয়ে স্কুল মাঠে যাওয়ার পরপরই আলভীর ওপর লোহার রড ও রাম দা নিয়ে হামলা চালায় সোহাগ ও তার লোকজন। এ সময় আলভীর বন্ধু আরাফাত ও সাজিদ এগিয়ে গেলেও তাদেরকে মারধর করা হয়।

মামলার বাদী আলভীর বাবা মোতালেব খান গণবিপ্লবকে বলেন, সোহাগের বাবা পরিকল্পিতভাবে তাদেরকে ডেকে নিয়ে হত্যা করার উদ্দেশ্যে হামলা করা হয়। তিনি হামলাকারী সোহাগসহ জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবি করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা (এসআই) জাহিদুল ইসলাম গণবিপ্লবকে বলেন, হামলাকারীদের গ্রেফতারের সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া