১৩ ডিসেম্বর মির্জাপুর হানাদার মুক্ত দিবস

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর, ২০১৯

পাক-হানাদার বাহিনী গ্রামের নিরীহ মানুষকে হত্যার পর লাশ লৌহজং নদীতে নিক্ষেপ করত। ফাইল ফটো

মির্জাপুর ১২ ডিসেম্বর : ১৩ ডিসেম্বর মির্জাপুরে হানাদার মুক্ত দিবস। ৭১’র এই দিনে অনেক ত্যাগ তিতিক্ষা ও রক্ষের বিনিময়ে মির্জাপুর উপজেলা হানাদার মুক্ত হয়।

৭১’র ৩ এপ্রিল এ উপজেলা হানাদার কবলিত হয়। এরপর ৭ মে টাঙ্গাইল জেলার এই এ উপজেলায় পাকবাহিনী ও তাদের দোসরা প্রথম গণহত্যা চালায়। যাতে শহীদ হন কুমুদিনী কল্যাণ ট্রাস্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা সহ ৩১ জন নিরপরাধ বাঙালি। এরপর উপজেলা সদর, বাশঁতৈল নয়াপড়া, হিলড়া, রামপুর ও পাথরঘাটাসহ বিভিন্ন স্থানে পাকবাহিনীর সঙ্গে মুক্তিবাহিনীর একাধিক স্থানে সম্মুখ যুদ্ধ সংগঠিত হয়।পরবর্তীতে আজকের এই দিনে এ উপজেলা হানাদার মুক্ত হয়।এতে নেতৃত্ব দেন কাদেরীয়া বাহিনীর কমান্ডার শাহ আজাদ কামাল জিহাদী, ফেরদৌস আলম রঞ্জু, একই বাহিনীর ৪৫নং কমান্ডার মঞ্জুর কাদের শাজাহান।যার টুআইসি ছিলেন বর্তমানে মির্জাপুরের সাংসদ একাব্বর হোসেন। এছাড়াও মিত্র বাহিনীর সদস্যরাও সহযোগি ছিলেন।

দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার (১৩ ডিসেম্বর) সকালে মির্জাপুর উপজেলা প্রশাসন ও মুক্তিযোদ্ধা কামান্ডের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে মাল্যদান করা হবে। এছাড়া সন্ধায় শহীদ স্মরণে মোমবাতি প্রজ্বলন ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হবে বলে উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া