সাংবাদিকদের উপর হামলার মূলহোতা গ্রেপ্তারের পর রিমান্ডে

প্রকাশিত : ৯ জানুয়ারী, ২০২০

ভূঞাপুর ৯ জানুয়ারি : টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে সাংবাদিকদের উপর হামলার মূলহোতা ও জুয়াড় আসর পরিচালনাকারী সেই ফজল মন্ডল (৫৫) কে অবশেষে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ।

বুধবার (০৮ জানুয়ারি) মধ্যরাতে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্যে গাজীপুরের কোনাবাড়ি এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারের পর বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে আসামি ফজলকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করলে বিচারক রুপম কুমার দাস ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গ্রেপ্তারকৃত ফজল মন্ডল উপজেলার গোবিন্দাসী ইউনিয়নের রাউৎবাড়ি গ্রামের মৃত আব্দুল কাশেমের ছেলে। তিনি গোবিন্দাসী ইউনিয়ন ট্রাক শ্রমিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা।

এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রাশিদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে গণবিপ্লবকে বলেন, সাংবাদিকদের উপর হামলার পর থেকেই ফজল মন্ডলকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছিল। কিন্তু সে খুব চতুর প্রকৃতির। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ এড়াতে বিভিন্ন পন্থায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আশ্রয় নিয়েছিল। অবশেষে তথ্য প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে বুধবার (৮ জানুয়ারি) মধ্যে রাতে পুলিশের একটি দল তাকে গাজীপুরের কোনাবাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে আসামি ফজল মন্ডলকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে টাঙ্গাইল কোর্টে প্রেরণ করলে বিচারক ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বলে গণবিপ্লবকে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

এদিকে, সকালে টাঙ্গাইলের সদর উপজেলার বাসাখানপুর এলাকা থেকে নিরুপ্পল সাহার ছেলে হামলাকারী জুয়াড়ি অমিত সাহাকে গ্রেপ্তার করেছে টাঙ্গাইল থানা পুলিশ।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (০২ জানুয়ারি) টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরের গোবিন্দাসী ঘাট সংলগ্ন কাঁশবন এলাকায় জুয়ার আসরের সচিত্র সংবাদ সংগ্রহে গেলে সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায় জুয়াড়িরা। হামলায় ডিবিসি টেলিভিশনের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার, ক্যামেরা পারর্সন আশিকুর রহমান, সাপ্তাহিক গণবিপ্লব ও দৈনিক ইত্তেফাকের সাংবাদিক অভিজিৎ ঘোষসহ ৬ জন আহত হন।

এ ঘটনায় সেই রাতেই ডিবিসির টাঙ্গাইল প্রতিনিধি সোহেল তালুকদার বাদী হয়ে জুয়াড়ির প্রধান ফজল মন্ডলকে প্রধান আসামি করে ৮জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত শতাধিক জুয়াড়ির বিরুদ্ধে ভূঞাপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

পরে অভিযান চালিয়ে এজাহারভুক্ত ৪ আসামিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। কিন্তু ঘটনার পর থেকে ফজল মন্ডল পলাতক ছিলেন। তাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ভূঞাপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সাংবাদিকরা কর্মসূচি পালন করে আসছিলেন।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া