ঘাটাইলে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ!

প্রকাশিত : ৮ আগস্ট, ২০১৫

Tangail.ঘাটাইল প্রতিনিধিঃ ঘাটাইল উপজেলা আকন্দের বাইদ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের এক প্রাক্তন ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠেছে। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে গত ৪ আগস্ট(মঙ্গলবার) দুপুরে বিচারের দাবিতে প্রধান শিক্ষক আবু রায়হানকে তার কক্ষে তালা বদ্ধ করে রেখে অভিভাবক এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ করেছে। খবর পেয়ে ঘাটাইল থানা পুলিশ গিয়ে প্রধান শিক্ষককে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত করে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়,  উপজেলার আকন্দের বাইদ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু রায়হান বিবাহিত এবং ২ সন্তানের জনক। গত ২ আগস্ট(রোববার) উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের ফটিয়ামারী গ্রামের সদ্য এসএসসি পাস করা এক ছাত্রী প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের জন্য প্রধান শিক্ষকের কাছে যায়। ছাত্রীটির বাবা আব্দুল আওয়াল প্রবাসী। প্রধান শিক্ষক তাকে স্কুল থেকে কাগজপত্র না দিয়ে সাগড়দিঘী বাজারে তার নিজ বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে ছাত্রীটি যৌন হয়রানির শিকার হয়। ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে গত ৪ আগস্ট(মঙ্গলবার) দুপুরে শিক্ষকের বিচার দাবি করে স্কুলের শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী স্কুলে গিয়ে প্রধান শিক্ষক আবু রায়হানকে তার রুমে তালাবন্ধ করে রাখে। এ সময় শত শত এলাকাবাসী স্কুল প্রাঙ্গণে সমবেত হয়ে বিক্ষোভ করে। বিক্ষোভকারীরা প্রধান শিক্ষককে স্কুল থেকে বহিস্কারের দাবি জানিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দেয়।
সাগড়দিঘী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের এএসআই আনিছুর রহমান জানান, তারা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষুদ্ধ জনতাকে শান্ত করে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককে তালাবদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত করেন এবং  বাসায় পৌঁছে দেন। এ বিষয়ে ছাত্রীটির পক্ষ থেকে কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি বলে তিনি জানান। স্কুলের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর অভিভাবক আকন্দের বাইদ গ্রামের নুরুল ইসলাস জানান, প্রধান শিক্ষক একজন চরিত্রহীন এর আগেও এ ধরণের ঘটনা ঘটলেও কোন বিচার হয়নি। আমরা লম্পট প্রধান শিক্ষককে স্কুল থেকে অপসারণ ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবি জানাচ্ছি। এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু রায়হাননের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ। কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে নিন।