টাঙ্গাইলে দলীয় প্রার্থীদের গণসংযোগ-উঠান বৈঠক শুরু

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর, ২০১৫

গণবিপ্লব রিপোর্টঃ

TANGAIL PORO NIRBACHON  PIC   09-12-15

টাঙ্গাইলে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পৌর নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থীরা বুধবার(৯ ডিসেম্বর) ভোর থেকে জোরেশোরে প্রচারণায় নেমেছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, বিএনপির প্রার্থী জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মাহমুদুল হক সানু, জাতীয় পার্টির প্রার্র্থী জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. মোজাম্মেল হক, ইসলামী আন্দোলনের আব্দুল কাদের, খেলাফত মজলিশের প্রার্থী হাসানাত আল আমিন পৃথক পৃথক ভাবে কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে গণসংযোগ ও উঠান বৈঠকে মিলিত হচ্ছেন।
প্রতীক পাওয়ার পর একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাফর আহম্মদ(বিএনপির বিদ্রোহী) অনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করবেন বলে জানা গেছে। এরআগে তিনি কুশল বিনিময়ের মাধ্যমে গণসংযোগ চালাচ্ছেন।
এছাড়া, পৌরসভার ১৮টি ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদের ৭২জন প্রার্থী ও ৬টি সংরক্ষিত মহিলা আসনের ৩৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী প্রতীক বরাদ্দ না পাওয়ায় অনুষ্ঠানিক প্রচারণা না চালালেও বিরতিহীনভাবে গণসংযোগে অংশ নিচ্ছেন।
মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা তাদের কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী সকাল থেকে প্রচার-প্রচরণায় নেমে পড়েছেন। তারা ভোটারদের কাছে গিয়ে নিজেদের পক্ষে ভোট ও দোয়া প্রার্থনা করছেন।
জেলা নির্বাচন অফিসার মো. তাজুল ইসলাম জানান, মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীরা বুধবার(৯ ডিসেম্বর) থেকে দলীয় প্রতীকে ভোট প্রার্থনা করতে পারবেন। মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রতীক ছাড়া প্রচারণায় অংশ নিলে নিজ দায়িত্বে নিতে পারবেন। আগামী ১৪ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দের পর সকল প্রার্থীই নিজ নিজ প্রতীকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণা চালাতে পারবেন। তিনি আরো জানান, প্রতিদ্বন্দ্বি সকল প্রার্থীকেই নির্বাচনী আচরন বিধিমালা জানিয়ে দেয়া হয়েছে। একই সাথে তাদের আচরন বিধি মেনে প্রচার-প্রচারণার কাজ চালানোর জন্য বলা হয়েছে। আচরন বিধিমালা লংঘন করা হলে সংশ্লিষ্ট প্র্রার্থীর বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া