টাঙ্গাইলে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত

প্রকাশিত : ২৬ মার্চ, ২০১৬

গণবিপ্লব রিপোর্টঃ

01

যুদ্ধাপরাধী-রাজাকার ও জঙ্গীমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে সারা দেশের ন্যায় টাঙ্গাইলেও যথাযোগ্য মর্যাদা ও নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে শনিবার(২৬ মার্চ) মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে।
শনিবার(২৬ মার্চ) ভোরে টাঙ্গাইল শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে একত্রিশবার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির উদযাপনের সূচনা করা হয়। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে শহীদ বেদীতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ ও শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। Tangail pic3-26.03.16
টাঙ্গাইল জেলা পরিষদের প্রশাসক ও সাবেক এমপি ফজলুর রহমান খান ফারুক, সদর আসনের সংসদ সদস্য মো. ছানোয়ার হোসেন, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য মনোয়ারা বেগম, জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব হোসেন, পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম তোফা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের কমান্ডার খ. জহিরুল হক ডিপিটি, পৌর মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি জাফর আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক কাজী জাকেরুল মওলা এবং জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, আওয়ামীলীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মী, বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী, পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারী, সাংবাদিকবৃন্দ সহ সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সর্বস্তরের জনতা শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে পুস্পস্তবক অর্পণ ও শহীদদের প্রতি প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরআগে ২৫ মার্চ(শুক্রবার) সন্ধ্যায় আলোর মিছিল নিয়ে জেলা সদরের বধ্যভূমিতে আলো প্রজ্জ্বলন করা হয়। দিবসের প্রথম প্রহরে শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে পুস্পার্ঘ অর্পণ করা হয়।
সকাল ৮টায় টাঙ্গাইল স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব হোসেন। এ সময় সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি, বয়েজ স্কাউট ও গার্লসগাইডদের কুচকাওয়াজে সালাম গ্রহন করেন, জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব হোসেন ও পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। পরে শিশু-কিশোরদের শরীরচর্চা ও মনোজ্ঞ ডিসপ্লে প্রদর্শিত হয়।
সকাল সাড়ে ১১টায় ভাসানী হল মিলনায়তনে মিলাদ মাহফিল, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ, বীরমুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব হোসেনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদের প্রশাসক ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফজলুর রহমান খান ফারুক, স্থানীয় সাংসদ মো. ছানোয়ার হোসেন, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সাংসদ মনোয়ারা বেগম, পুলিশ সুপার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, বীর মুক্তিযোদ্ধা কবি বুলবুল খান মাহবুব, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আলমগীর খান মেনু, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, টাঙ্গাইল পৌরসভঅর মেয়র জামিলুর রহমান মিরন, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার খন্দকার জহুরুল হক ডিপটি, জেলা আ’লীগ নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার আশরাফুজ্জামান স্মৃতি, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ বীরবিক্রম প্রমুখ।
দুপুরে শহীদদের আতœার মাগফেরাত এবং জাতির শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মসজিদ, মন্দির, গির্জা ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত ও প্রার্থণা করা হয়। এছাড়া জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন দিনব্যাপি নানা কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করে।

ঘাটাইল
টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় সারাদেশের ন্যায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে ৪৬তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করা হয়েছে।
উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বনি করা হয়। উপজেলা আ’লীগ ও সহযোগী সংগঠন, বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠন সহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে স্বাধীনতা যুদ্ধে আতœদানকারী বীর শহিদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে পুস্পক স্তবক অর্পণ করে। পরে সরকারি, বেসরকারি, স্বায়িত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, দোকানপাট ও বাসাবাড়িতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
কলেজ মাঠ চত্বরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে প্রদর্শন, মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও অঅলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
ইউএনও আবুল কাশেম মুহাম্মদ শাহীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম খান সামু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ড কাউন্সিলের কমান্ডার তোফাজ্জল হোসেন, জিবিজি কলেজের অধ্যক্ষ শামসুল আলম মণি, উপজেলা আ’লীগের আহবায়ক শহিদুল ইসলাম লেবু, ঘাটাইল থানার অফিসার্স ইনচার্জ (ওসি) মো. কামাল হোসেন, সাবেক পৌর মেয়র মো. হাসান আলী, জিবিজি কলেজের সাবেক ভিপি শহীদুজ্জামান খান প্রমুখ।

এলেঙ্গা
কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গায় নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করা হয়েছে। ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে এলেঙ্গা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন কালিহাতী উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আব্দুল লতিফ মোল্লা, যুগ্ম-আহ্বায়ক সফিকুল ইসলাম সফি, সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আশিকুর রহমান দোলনসহ নেতৃবৃন্দ। এছাড়া দিনটি উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নানা কর্মসূচি পালন করে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল, শহীদ বেধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া, স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ইত্যাদি।
ভূঞাপুর
ভূঞাপুরে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যদিয়ে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার মধ্যে ছিল শিশু কিশোরদের চিত্রাঙ্কন, কবিতা আবৃত্তি, রচনা প্রতিযোগিতা, র‌্যালি, কুচকাওয়াজ, ডিসপ্লে, প্রীতি ফুটবল ম্যাচ, আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা ভবনের সামনে থেকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের একটি বিশাল র‌্যালি উপজেলা পরিষদের সামনে থেকে ইবরাহীম খাঁ সরকারি কলেজ স্মৃতি সৌধে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল আওয়ালের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম মিঞা, ভাইস চেয়ারম্যান সাহিনুল ইসলাম তরফদার বাদল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) অঞ্জন কুমার সরকার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হোসনে আরা বেবি, শিক্ষা কর্মকর্তা মো. লুৎফর রহমান খান প্রমূখ। আলোচনা শেষে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া