টাঙ্গাইলে রাতভর জুয়ার আড্ডা

প্রকাশিত : ১৩ আগস্ট, ২০১৮

গণবিপ্লব রিপোর্টঃ 

টাঙ্গাইল পৌর শহরে বটতলা ক্লাব, সবুর খান টাওয়ার ও সৌখিন মৎস্য শিকারী সমিতিতে কাটাকাটি, নিপুণ, চড়াচড়ি, ডায়েস, ওয়ান-টেন, ওয়ান-এইট, তিন তাস, নয় তাস, রেমিসহ নানা নামে, নানাভাবে অবাধে চলছে এ জুয়ার আড্ডা। আইনানুসারে দণ্ডনীয় অপরাধ হলেও নানা কৌশলে স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করেই চলছে এ জুয়ার আসর। জুয়ারুরা জুয়ার লোভ সামলাতে না পেরে অনেকে পথে বসছেন। এতে পারিবারিক অশান্তিসহ সমাজে বাড়ছে নানা অসঙ্গতি। সাধারণ মানুষকে সর্বস্বান্ত করে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে পৃথক একটি চক্র। এসব কর্মকাণ্ডে এলাকাবাসী অতিষ্ট হয়ে উঠেছে। জুয়ার বোর্ডের নিয়ন্ত্রণকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না। কেউ কিছু বললে তাকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছে বলেও অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, জেলা শহরের প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত বিবেকানন্দ স্কুল অ্যাড কলেজ মার্কেটের তৃতীয় তলায় বটতলা ক্লাব ও আদালত চত্বর ঘেঁষে ডিসট্রিক্ট লেক নামে পরিচিত সৌখিন মৎস্য শিকারী সমিতি এবং বড়কালীবাড়ি এলাকায় সবুর খান টাওয়ারে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলে জুয়ার আসর। প্রতিদিন ১৫০-১৬০ জুয়াড়ি এতে অংশ নেন। প্রতিটি উল্লেখযোগ্য জুয়ার আসর থেকে প্রতি রাতে ১০ থেকে ৫০ হাজার টাকা পাচ্ছেন নিয়ন্ত্রণকারী হিসেবে পরিচিত প্রভাবশালীরা। শুধু টাঙ্গাইল নয়, পুরো উপজেলায় রয়েছে জুয়াড়িদের শক্তিশালী নেটওয়ার্ক। জুয়ার আসরের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করেন প্রভাবশালীরা। এলাকার ‘বড় ভাই’ হিসেবে পরিচিত এ প্রভাবশালীরা স্থানীয় প্রশাসন ও এলাকার মাস্তানদের ম্যানেজ করে এসব জুয়ার বোর্ড চালাচ্ছে। জুয়ার উপার্জনের বেশির ভাগই চলে যাচ্ছে তাদের পকেটে।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক জুয়ার আসরের একাধিক ব্যক্তি জানায়, নিপুণ, চড়াচড়ি, ডায়েস, ওয়ান-টেন, ওয়ান-এইট, তিন তাস, নয় তাস, রেমি, ফ্ল্যাসসহ ইনডোর গেমস নামে এখানে চলছে এসব জুয়া খেলা। এরমধ্যে রেমি ও হাজারি খেলায় আয়োজকরা নেন বিজয়ীদের কাছ থেকে ২০ ভাগ, ফ্ল্যাস ও কাটাকাটিতে ১০ ভাগ। এভাবে প্রতি আসর থেকে টাকা আয় করেন আয়োজকরা।

অভিযোগ আছে, এদের মধ্যে ব্যবসায়ী, চাকরিজীবী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কিছু সদস্য রয়েছে। এসব জুয়ার আসরে লেনদেন হয় কয়েক কোটি টাকা।জুয়াকে কেন্দ্র করে চলে মাদকসেবনও।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সায়েদুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে আমরা অভিযোগ পেছেছি। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

তারিখ অনুযায়ী সংবাদ পড়ুন

মে 2022
রবি সোম বুধ বৃহ. শু. শনি
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  
এইমাত্র পাওয়া
error: দাঁড়ান আপনি জানেন না কপিরাইট আইনে দণ্ডনীয় অপরাধ। কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে নিন।