মাদক ব্যবসায়ী ছানোয়ারের মাদকের রাজ্য

প্রকাশিত : ২৩ জুন, ২০২১

ধারাবাহিক প্রতিবেদনের প্রথম পর্ব

টাঙ্গাইল জেলায় মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে মাদক। ইয়াবা নামক আলাদিনের চেরাগ মাদক ব্যবসায়ীরা তুলে দিচ্ছে এ জেলার সাধারণ মানুষের হাতে হাতে। ছোটখাটো চালান বিক্রিতেই অনেক লাভ! লোভে পড়তে শুরু করে মানুষ। চেরাগ ধরার গতি বেড়ে যায় তাদের। এ-ঘর থেকে ও-ঘর। এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রাম। ধুম পড়ে যায় ইয়াবা বিক্রির। আর এসব মাদক ব্যবসায়ীদের মুখোশ খুলতে মাঠে নেমেছে গণবিপ্লব পত্রিকার অনুসন্ধানী টিম।

এরই ধারাবাহিকতায় এবার অনুসন্ধানী টীমের নজরে পরে করটিয়া এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ছানোয়ার হোসেন। তিনি করটিয়া ইউনিয়ন যেন মাদকের স্বর্গ রাজ্যে পরিণত করেছে! এখানে হাত বাড়ালেই মিলছে ইয়াবা। বর্তমানে মাদকাসক্ত ও মাদক বিক্রেতা মানুষের সংখ্যা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে এই ইউনিয়নে।

স্থানীয়রা জানায়, এ ইউনিয়নের এমন কোনো গ্রাম নেই যেখানে মরণনেশা ইয়াবা পৌঁছায়নি। এর ছোঁবলে যুব সমাজ ও সৃজনশীল তরুণ প্রজন্মেও একটা অংশ হারিয়ে যাচ্ছে কালো জগতে। আইনশৃংঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে মাঝে মধ্যে মাদকদ্রব্যসহ ব্যবসায়ী আটক হলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকছে ইয়াবা ব্যবসায়ী ছানোয়ার।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক একাধিক মাদক সেবনকারী জানায়, ছানোয়ারের কাছ থেকে গতকাল (২২ জুন) ট্যাবলেট (ইয়াবা) কিনেছি। আমরা প্রতিদিন কিনি তার কাছ থেকে। আমরা কোন দিন শুনি নি তার কাছে নেই পরে নিতে হবে। তার মোবাইলে কল দিলেও তিনি সেখানে গিয়ে দিয়ে যায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ছানোয়ারের এক পরিচিত ব্যক্তি জানায়, ছানোয়ার দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছে। আমি ছানোয়ারকে না করেছিলাম এসব খারাপ ব্যবসা না করতে । কিন্তু সে কথা না শুনে এখন এলাকার যুবসমাজ ধ্বংস করে দিচ্ছে। প্রশাসনের কাছে এর প্রতীকার চাই।

এ দিকে একটি সুত্র জানায়, তার মোবাইল’র কল লিস্ট বের করা হলে। লিস্টে সব মাদক সেবি ও মাদক বিক্রয়তাদের নাম্বার বের হয়ে আসবে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ছানোয়ারের মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ওভাবে আমি মাদক ব্যবসায়ীর সাথে জরিত না। এ কথা বলেই ফোন রেখে দেয়।

এদিকে ছানোয়ারের মাদক ব্যবসা বন্ধ করতে এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

সংবাদ চলবে…

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া