শাক দিয়ে মাছ ঢাকতে মরিয়া পাকির

প্রকাশিত : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব ও গণবিপ্লব অনলাইন সংস্করণে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার ৯ নং বল্লা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী চান মাহমুদ পাকিরের দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ হলে শাক দিয়ে মাছ ঢাকার মত দুর্নীতি ঢাকতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন পাকির। সংবাদের প্রতিবাদ প্রকাশের জন্য সংশ্লিষ্ট পত্রিকার বরাবর প্রতিবাদ প্রকাশের জন্য আবেদন করার নিয়ম থাকলেও তিনি তা না করে ভোরের পাতা নামের অন্য একটি পত্রিকায় ভুয়া তথ্য দিয়ে প্রতিবাদ প্রকাশ করেছে।

চান মাহমুদ পাকির ভোরের পাতার প্রতিবাদে উল্লেখ করেছে, বিগত ২০১৪ সালে বল্লা করোনেশন হাইস্কুলে সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার ২০১৫ সালে ১ ফেব্রুয়ারি কলেজ শাখা খোলা হয়। ওই সময় হাইস্কুলের ভুমিতে মরে যাওয়া ও ঝড়ে ভেঙ্গে যাওয়া গাছ কলেজ উন্নয়নের স্বার্থে কেটে বেঞ্জ বানানো হয়। গাছ বিক্রির প্রশ্নই আসে না। অথচ বিদ্যালয়ের গাছ কাটার একটি পরিপত্র রয়েছে, নীতিমালা রয়েছে এবং নির্ধারিত কমিটি রয়েছে। এই কমিটির অনুমোদন ছাড়া যে গাছ কাটার নিয়ম নেই। তিনি অনুমোদন না নিয়ে গোপনে গাছ বিক্রি করে নিজের পকেট ভারি করেছে।

চান মাহমুদ পাকির প্রতিবাদে তিনি আরও উল্লেখ করেছে, বিদ্যুতের পুরাতন ভবনটি পত্রিকায় বিজ্ঞাপন ও পোষ্টার ছাপিয়ে বল্লা বাজারসহ বিভিন্ন স্থানে লাগানো হয়। আদত পাকির তা না করে টাকার বিনিময় পূর্বের তারিখে বিজ্ঞপ্তি বের করে হালাল করেছে। যা গত পর্বে সাপ্তাহিক গণবিপ্লব প্রিন্ট ও অনলাইন সংস্করণের নবম প্যাড়ায় উল্লেখ করা হয়েছে, যে বল্লা করোনেশন স্কুল অ্যান্ড কলেজের গাছ ও সরকারি ভবন টেন্ডার ছাড়া বিক্রির সংবাদ সাপ্তাহিক গণবিপ্লব অনলাইনে প্রকাশের পর হাজী চান মাহমুদ পাকির তা হালাল করার জন্য পূর্বের তারিখে টেন্ডার ও পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পাঁয়তারা করছে। তাহলে কি পূর্বের তারিখেই টেন্ডার ও পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ?

পাকির প্রতিবাদে উল্লেখ করেছে, বেসিক সেন্টার কালিহাতী (বল্লা তাতঁবোর্ডের) তাঁতিদের সমিতি আছে। ওই সমিতির মাধ্যমে তাঁতিরা পরিচালিত হয়ে আসছে। আমি তাঁত বোর্ডের সাথে জড়িত নই। অথচ ২০১৬ সালে ঐ তাঁত বোর্ডের সভাপতি ছিলেন হাজী চান মাহমুদ পাকির। বর্তমানে বল্লা ইউনিয়ন ১ নং ওয়ার্ড প্রাথমিক তাঁতী সমিতির পরিচালকের দায়িত্বে আছেন এই পাকির। এমনকি তার নামে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক বল্লা শাখায় ১৬ সালে সভাপতি হিসেবে তার নামে একাউন্ট রয়েছে।

চেয়ারম্যান পাকির প্রতিবাদে উল্লেখ করেছে, বল্লা বাজারে আমার পৈত্তিক সম্পত্তি উপর ভবন নির্মান করেছি। জবর দখলের প্রশ্নই আসে না। অথচ বল্লা বাজারের প্রবেশ মুখে ব্রীজের পাশে নদী ভরাট করে সরকারি পেরিফেরি ও খাস জমি দখল করে ৪র্থ তলা ভবন নির্মাণ করেছে পাকির।

এদিকে সাপ্তাহিক গণবিপ্লব প্রিন্ট সংস্করণে সংবাদ প্রকাশ হলে বল্লা ও রামপুরবাসী প্রায় হাজার কপি পত্রিকা কিনে নিয়েছে। কেউ কেউ না পেয়ে ফটো কপি করেছে বলে অনেকেই জানিয়েছে।

অন্যদিকে সাপ্তাহিক গণবিপ্লব পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় এলাকার সাধারণ মানুষ ও ভুক্তভোগীরা প্রতিবেদনের প্রতিবেদক ও পত্রিকা কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জ্ঞাপণ করেছেন। ( চলমান)

সাপ্তাহিক গণবিপ্লব
এইমাত্র পাওয়া