টাঙ্গাইলে কাগজপত্র না থাকায় ১৭টি ক্লিনিক সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। এ সময় কয়েকটিকে জরিমানা করা হয়েছে। শনিবার (২৮ মে) দিনব্যাপী স্বাস্থ্য অধিদফরের নির্দেশনা অনুযায়ী টাঙ্গাইল সদর উপজেলাসহ বিভিন্ন উপজেলায় এ অভিযান পরিচালনা করে স্থানীয় প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ।স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, স্বাস্থ্য অধিদফতরের বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক সুপারভিশন এবং মনিটরিং বিষয়ে সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক সারাদেশের মতো টাঙ্গাইলে গড়ে ওঠা অনিবন্ধিত ক্লিনিক বন্ধে অভিযান শুরু করেছে প্রশাসন। অভিযানের প্রথমদিন টাঙ্গাইল শহরে চারটি, মধুপুর উপজেলায় দুটি, ভূঞাপুরে দুটি, মির্জাপুরে দুটি, ঘাটাইলে একটি ও গোপালপুরে ছয়টি অবৈধ ক্লিনিক সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রানুআরা খাতুন বলেন, কাগজপত্র না থাকায় শহরের স্বদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতাল অ্যান্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, পদ্মা ক্লিনিক, আমানত ক্লিনিক অ্যান্ড হসপিটাল সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া কমফোর্ট হসপিটালের মালিককে ৩০ হাজার টাকা, দি সিটি হাসপাতালের মালিককে ২০ হাজার টাকা ও ডিজিল্যাবকে ৩০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া রোগী থাকার কারণে ডিজি ল্যাবকে রবিবার পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছে। তারপর সেটিও সিলগালা করা হবে।

টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. আবুল ফজল মো. সাহাবুদ্দিন খান বলেন, বৈধ কাগজপত্র না থাকায় প্রথমদিনের অভিযানে টাঙ্গাইল সদরসহ বিভিন্ন উপজেলায় ১৭টি ক্লিনিক সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আরও কয়েকটিকে জরিমানা করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।