টাঙ্গাইলে সখীপুরে অধ্যক্ষ জামাল হোসেন ঠান্ডু হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে টাঙ্গাইলের স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক বেগম শাহানা হক সিদ্দিকা এ রায় দেন। এছাড়া আদালতের বিচারক দন্ডপ্রাপ্ত ২ জনকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এ হত্যা মামলায় অভিযোগ প্রমানিত না হওয়ায় ৩ জনকে বেকুসুল খালাস দিয়েছেন আদালত।

দন্ডপ্রাপ্তরা হলো- সখীপুরের ফুলবাগ গোবরচাকা গ্রামের মৃত হাসান আলীর ছেলে মিনহাজুর রহমান মিন্টু, একই গ্রামের সুজত আলীর ছেলে আব্দুল মালেক শুকুর। খালাসপ্রাপ্তরা হলো- শমশের আলী, মোহাম্মদ মাসুদ এবং মোহাম্মদ নান্নু মিয়া।

রাষ্ট্রের পক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ মহসিন সিকদার বলেন, বিগত ২০১১ সালের (২০ অক্টোবর) দুপুরে অধ্যক্ষ জামাল হোসেন ঠান্ডু সখীপুরের পলাশতলী মহাবিদ্যালয় থেকে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হয়। তিনি বৈল্লারপুর এলাকায় পৌঁছালে পূর্ব শত্রুতার জেরে মিনহাজুর রহমান মিন্টুর নেতৃত্বে অধক্ষ্য জামাল হোসেনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় ওই দিন জামাল হোসেনের স্ত্রী পারভীন বেগম বাদি হয়ে সখীপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

বিগত ২০১২ সালের (২৬ ডিসেম্বর) জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই আইয়ুব আলী ৫ জনের নামে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। বিচারক স্বাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ২ জনকে মৃত্যুদন্ড ও অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় ৩ জনকে বেকসুর খালাস দেয়। রায় ঘোষণার সময় আসামী মিনহাজুর রহমান মিন্টু আদালতে উপস্থিত ছিলেন এবং অপর আসামী আব্দুল মালেক শুকুর পলাতক রয়েছেন।